হিমালয়ের মৃত্যুকূপ! পর্বতারোহীদের জন্য মাউন্ট এভারেস্ট কতটা বিপজ্জনক?


বেস জাম্পিং অথবা বিমান থেকে লাফিয়ে প্যারাস্যুটিং করা। কিংবা স্কুবা ডাইভিং বা ওয়াটার রাফটিং। এই ধরনের বিনোদন কারো কারো জন্য রোমাঞ্চকর হয়ে থাকে, আবার অনেকের কাছে এটি হতে পারে ভয়ানক একটি কাজ। আর আপনি যদি ডেঞ্জার+এডভভেঞ্চারের একটা দারুন কম্বিনেশন পেতে চান, তাহলে বোধ হয় পর্বত আরোহণ হতে পারে আপনার জন্য বেস্ট চয়েস।

পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে রোমাঞ্চপ্রিয় পর্বত আরোহীরা হিমালয়ের মাউন্ট এভারেস্টে ওঠার চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে থাকেন। বিশ্বের সর্বোচ্চ পর্বত এই মাউন্ট এভারেস্টের শৃঙ্গ সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২৯,০২৯ ফুট বা ৮,৮৪৮ মিটার উপরে। ১৯৫৩ সালে প্রথমবারের মতো স্যার এডমন্ড হিলারি এবং তেনজিং নোরগে এভারেস্টের চূড়ায় আরোহন করেন। এরপর থেকে, চার হাজারেরও বেশি মানুষ পর্বতটির চূড়ায় উঠেছেন। আর এ কাজটি সফল করার জন্য, পর্বতারোহীদের যেতে হয়েছে এভারেস্টের সবচেয়ে বিপজ্জনক জায়গাটিতে। আর এই জায়গাটিকে বলা হয় হিমালয়ের "ডেথ জোন" বাংলায় যাকে বলা যায় হিমালয়ের মৃত্যুকূপ।

পর্বত আরোহনের প্রস্তুতিপর্বে আরোহীদের তাদের শরীরকে একটি নির্দিষ্ট উচ্চতার সাথে মানিয়ে নেয়ার অভ্যেস করতে হয়। আর এর জন্য কিছুটা সময়ের প্রয়োজন পড়ে। মূলত, এজন্যই মাউন্ট এভারেস্টের অভিযান সফল করতে কয়েক সপ্তাহ সময় লেগে যায়। পর্বত বেয়ে উপরে ওঠার সময় আরোহীরা প্রতি কয়েক হাজার ফুট উপরে ওঠার পর একবার করে বিশ্রাম নিয়ে নেয়। যখন তারা ২৬,২৪৭ ফুট বা ৮০০০ মিটার অতিক্রম করে ফেলে, তখন শুরু হয় হিমালয়ের সবচেয়ে বিপজ্জনক অঞ্চল ‘ডেথ জোন’।

কতটা বিপজ্জনক এই ডেথ জোন? সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে এতো উপরে, বায়ুমণ্ডলে অক্সিজেনের পরিমাণ ৪০ শতাংশ কমে যায়। যা মানুষের শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় অক্সিজেনের চাহিদার থেকেও কম। পাহাড় বেয়ে এতো উপরে ওঠার ক্লান্তি এবং সেই সাথে অক্সিজেনের স্বল্পতা, দুয়ে মিলে পরিস্থিতিকে আরো ভয়াবহ করে তুলতে পারে। 

আমাদের শরীরের প্রতিটি কোষের তার কার্য সম্পাদনের জন্য অক্সিজেনের প্রয়োজন হয়। হিমালয়ের ডেথ জোনে অক্সিজেনের উপস্থিতি খুব কম হওয়ার কারনে জায়গাটি একটি মৃত্যুকূপে পরিণত হয়েছে। আর সেজন্য, যারা মাউন্ট এভারেস্ট সামিট করে থাকেন তাদের শরীরে এর একটা খারাপ প্রভাব পড়তে পারে।

মস্তিষ্ক ফুলে যাওয়া এবং মস্তিষ্কে তরল পদার্থের ক্ষরণ এর মধ্যে একটি প্রধান সমস্যা। একে হাই অলটিটিউড সেরিব্রাল এডিমা বলা হয়ে থাকে। এর ফলে বমি বমি ভাব ও বমি হতে পারে। এবং এক পর্যায়ে এটি আপনার চিন্তা চেতনাকেও প্রভাবিত করতে পারে। ডেথ জোনে অবস্থিত পর্বতারোহীরা অনেক সময় এটাও ভুলে যায় যে তারা এখন কোথায় আছে অর্থাৎ স্মৃতিভ্রংশ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এছাড়াও অনেকে হ্যালুসিনেশনের মতো মারাত্মক পরিস্থিতিরও শিকার হয়ে থাকেন। যা একটি বিপজ্জনক পর্বত আরোহণকে আরও প্রাণঘাতী করে তোলে। 

অনেক পর্বতারোহী ডেথ জোনে হাই অলটিটিউড পালমোনারি এডিমা অনুভব করে থাকেন। এ রোগের লক্ষণগুলির মধ্যে রয়েছে ফুসফুসে তরল পদার্থের ক্ষরণ, ক্লান্তি এবং দুর্বলতা। হাই অলটিটিউড পালমোনারি এডিমায় আক্রান্ত পর্বতারোহীদের এমন অনূভুতি হয় , যেন কেউ তাদেরকে শ্বাসরোধ করার চেষ্টা করছে। আর এর ফলে ক্রমাগত কাশি এবং মুখ থেকে সাদা ও ফেনাযুক্ত তরল কফ বের হতে পারে। 

ডেথ জোনে সৃষ্ট অন্যান্য বিপদগুলোর মধ্যে, অতিরিক্ত তুষারপাতের জন্য ঠিকমতো তাকাতে না পাড়া এবং হিমশীতলতার সমস্যাও উল্লেখ করার মতো। তুষার এবং বরফের ঝলকানির কারণে কিছু সময়ের জন্য আরোহীরা এরকম পরিস্থিতির শিকার হয়ে থাকে। হিমশীতলতার ঘটনাও আপনার শরীরকে খারাপভাবে প্রভাবিত করতে পারে। কারন মাউন্ট এভারেস্টের তাপমাত্রা এতোটাই কম যে, তাত্ক্ষণিকভাবে তা আপনার ত্বক জমিয়ে দেয়ার জন্য যথেষ্ঠ। 

অনেক সময় চূড়ার আশেপাশের বাতাসের গতিবেগ ঘন্টায় ৩০০ কিলোমিটারও ছাড়িয়ে যায়। এছাড়া আট হাজার মিটারের বেশি উঁচু বাকি পাহাড়গুলোর মতো এভারেস্টের বরফ ধ্বস এবং তুষারঝড় একটি সাধারন ঘটনা।

মাউন্ট এভারেস্টই একমাত্র চূড়া নয় যেখানে ডেথ জোন রয়েছে। প্রকৃতপক্ষে, বিশ্বের ১৪টি উচ্চতম পর্বতের সবগুলোতেই ডেথ জোনের উপস্থিতি বিদ্যমান। এগুলোর সবই এশিয়া মহাদেশের হিমালয় এবং কারাকোরাম রেঞ্জে অবস্থিত। এমন এডভেঞ্চারপ্রিয় পর্বতারোহীও আছেন যারা এই ১৪ টির সবগুলোর চূড়ায় পৌছানোর টার্গেট করেন।

আপনি কি কখনো মাউন্ট এভারেস্টের মতো কোন সুউচ্চ পর্বত সামিট করতে চান? ডেথ জোন থেকে নিজেকে রক্ষা করার কি কি কৌশল জানা আছে আপনার? পর্বত  আরোহণের জন্য দক্ষতা এবং প্রস্তুতি উভয়ই প্রয়োজন। আপনি যদি এরকম এডভেঞ্চারে আগ্রহী হয়ে থাকেন, তাহলে এখন থেকেই পূর্ব সতর্কতা ও নিরাপত্তার ব্যাপারে কিছুটা সময় ব্যয় করা উচিত আপনার।


Source:

  • https://www.washington.edu/news/2020/08/26/mount-everest-summit-success-rates-double-death-rate-stays-the-same-over-last-30-years/ 
  • https://www.businessinsider.com/mount-everest-death-zone-what-happens-to-body-2019-5 
  • https://theconversation.com/everest-i-interviewed-people-risking-their-lives-in-the-death-zone-during-one-of-the-deadliest-seasons-yet-118427
  • https://learnersdictionary.com/

আর্কাইভ

যোগাযোগ ফর্ম

প্রেরণ